Home / সারাদেশ / নীলফামারী প্রতিদিন / নীলফামারীতে দারিদ্র্য বিমোচন দিবস উপলক্ষ্যে মতবিনিময়

নীলফামারীতে দারিদ্র্য বিমোচন দিবস উপলক্ষ্যে মতবিনিময়

ক্রাইম প্রতিদিন, মহিনুল ইসলাম সুজন, নীলফামারী : বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে তা এখন বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত। বিশেষ করে সামাজিক সূচকে বাংলাদেশের অগ্রগতি এখন অনেক দেশের জন্যই উদাহরণ।

বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশের পথে। দারিদ্র্য নিরসনে সরকারের পাশাপাশি ব্র্যাক সহ বেসরকারী সংস্থাগুলো গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ গ্রামীন জনপদের চিত্র পাল্টিয়ে দিতে সহায়তা করছে। বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি, নারীর ক্ষমতায়ন, পুষ্টির নিরাপত্তা, আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এবং আমিষের নিশ্চয়তার জন্য নিরলস কাজ করে যাচ্ছে।

দেশে বাণিজ্যিক ভিত্তিক গবাদী পশু পালন, ক্ষুদ্র ব্যবসা একটি সম্ভাবনাময় ও লাভজনক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সেই সাথে উপযুক্ত প্রযুক্তির উদ্ভাবন এবং বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগি ও গরু ছাগল চাষকে আজ কর্মসংস্থান ও গ্রামীণ দারিদ্রবিমোচনের একটি অন্যতম হাতিয়ারে পরিণত করেছে।

আগামী ১৭ অক্টোবর আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য বিমোচন দিবস উপলক্ষে আজ সোমবার (১৪ অক্টোবর) জেলায় আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রামের কার্যক্রম নিয়ে মতবিনিময় সভা করেন, জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী।

নীলফামারী নতুনবাজার ব্র্যাক অফিসে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক, সদরের চাপড়া সরমজানি গ্রাম পরিদর্শন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এলিনা আক্তার। তারা অতিদারিদ্র্য নিরসনে সরকারকে সহায়তা করার জন্য ব্র্যাকের ভূমিকা প্রশংসা করেন।

সুত্র জানায়, তাদের এই উদ্যোগের লক্ষ্য হচ্ছে, সরকারের মাঠ পর্যায়ে তথা আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রাম বিষয়ে সম্যক ধারণা দেওয়া এবং জেলা পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহের কাছে কর্মসূচিটির অভিজ্ঞতা লব্ধ জ্ঞান তুলে ধরা। যা ভবিষ্যতে সরকারের সঙ্গে সমন্বিতভাবে কাজ করার পরিবেশ তৈরিতে অবদান রাখবে।

জেলায় ২০১৮ সালে আলট্রা-পুওর গ্র্যজয়েশন প্রোগ্রামের কার্যক্রম শুরু হয়। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলায় ৩৫ হাজার ৪৭২ টি অতিদরিদ্র পরিবার ব্র্যাকের আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রামের আওতায় এসেছে। ২০১৯ সালে এই কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছে ৩ হাজার ২৯২ টি পরিবার।