সন্ত্রাসীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বাবা!

  • কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
  • ২০২০-০৫-১৩ ২২:২৬:০৪
image

অপহরণের ৪দিনেও উদ্ধার হয়নি শারমিন। তবে পুলিশ বলছে এটি প্রেমঘটিত বিষয়। প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শারমিনকে উদ্ধারের চেষ্টা করে যাচ্ছে পুলিশ।

পুলিশ ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, মহিপুর থানার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের বাসিন্দা রফিকুল ইসলামের মেয়ে শারমিনকে গত ৯ মে রাতে সাগর হাওলাদার অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে। শারমিন ও সাগর দুজনে আপন চাচাতো ভাই বোন। শারমিন এবছর এসএসসি দিয়েছে। সাগর বর্তমানে অষ্টম শ্রেনীতে পরে। গত ১০ মে ভোরে শারমিনের বাবা রফিকুল ইসলাম মহিপুর থানায় তার মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে মর্মে মৌখিকভাবে অভিযোগ করেন। অপহরণের পর স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা মেয়েকে উদ্ধারের কথা বললেও এখন পর্যন্ত উদ্ধার হয়নি শারমিন।

শারমিনের বাবা রফিকুল ইসলাম বলেন, সাগর তার ভাইয়ের ছেলে হলেও তার মেয়ের সাথে কোন প্রেমের সম্পর্ক নেই। শারমিনের চেয়ে সাগর প্রায় ৩ বছরের ছোট। তাকে অপহরণ করা হয়েছে। এ অপহরণে সহযোগিতা করেছে ইফরান (২৩) ও ফারুক হাংসহ আরো কয়েকজনে। 

তিনি বলেন, সাগর ও তার পরিবার মাদক ব্যবসায়ী পরিবার। তাদের সাথে পুলিশের সখ্যতা রয়েছে। মেয়েকে অপহরনের পরও দুই দফায় তার বাড়িতে হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। তিনি এখন জীবনের ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। 

গত ১২ মে সাগরের মা রাবেয়া বেগম বাদী হয়ে তার ছেলেকে শারমিন ফুঁসলিয়ে নিয়ে গেছে বলে উল্টো তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে। একই দিন বিকেলে পুলিশ তার মেয়েকে অপহরনের মামলা নেয়। 

মহিপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, শারমিনকে অপহরণ করা হয়েছে এমন অভিযোগ করেছে শারমিনের বাবা। অপরদিকে সাগরের মা রাবেয়া বেগম তার ছেলেকে শারমিন ফুঁসলিয়ে নিয়ে যাবার অভিযোগ এনে থানায় একটি মামলা করেছে। শারমিন ও সাগর দু’জনে আপন চাচাতো ভাইবোন। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন। তবে প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শারমিনকে উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ বলে জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন


নিউজ সম্পর্কে মতামত লিখুন


 
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ